কিশোরগঞ্জ নিকলী হাওর : জানুন অজানা তথ্য

5/5 - (2 votes)

নিকলী হাওর বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জ জেলার একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রাকৃতিক সম্পদ। এটি একটি জৈবিক বৈচিত্র্যের জলাভূমি এবং বিভিন্ন ধরণের পাখির আবাসস্থল হিসেবে পরিচিত। এই এলাকায় বসবাসকারী অনেক লোকের জীবিকা নির্ভর করে এই হাওরের উপর।

কিশোরগঞ্জের এই হাওর অঞ্চল বাংলাদেশের আবাসিক এবং অতিথি পাখিদের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ শীতকালীন অঞ্চলগুলির মধ্যে একটি।

কিশোরগঞ্জ নিকলী হাওর
কিশোরগঞ্জ নিকলী হাওর

কিশোরগঞ্জ নিকলী হাওর

নিকলী হাওর (Nikli Haor) বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জে অবস্থিত একটি জলাভূমি বা মিঠা পানির হ্রদ। এটি প্রায় ২৫০০ হেক্টর এলাকা জুড়ে অবস্থিত এবং বাংলাদেশের বৃহত্তম হাওর।

বর্ষাকালে হাওর তার চিরচেনা রুপে ফিরে আসে। এখানকার স্থানীয় জনগোষ্ঠী জীবিকা নির্বাহের জন্য এই হাওর এর উপর নির্ভর করে। এই হাওরের অর্থনৈতিক, পরিবেশগত এবং সাংস্কৃতিক অনেক গুরুত্ব রয়েছে।

এটি রুই মাছের পোনা উৎপাদনের মতো বিভিন্ন ধরণের জলজ চাষের আবাসস্থল হিসাবে পরিচিত।

এছাড়াও, এই হাওর কিশোরগঞ্জের জনগোষ্ঠীর জন্য খাদ্য ও পানির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি উৎস। জলাভুমি এই অঞ্চলের অর্থনীতির একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ।

এই এলাকাটি উদ্ভিদ ও প্রাণীর প্রাচুর্যের জন্যও পরিচিত। বাংলাদেশ অবস্থিত নিকলি হাওর কিশোরগঞ্জ জেলার একটি বৃহৎ জলাভূমি কমপ্লেক্স। নিকলি হাওর বাংলাদেশের অন্যতম একটি পর্যটন কেন্দ্র হিসাবে পরিচিত। এখানকার সরু রাস্তা সেই সাথে চার পাশের সাদা জলরাশি পর্যটকদের মন কেড়ে নেয়।

নিকলী হাওর কোথায় অবস্থিত

কিশোরগঞ্জ জেলা বাংলাদেশের উত্তর-মধ্য অঞ্চলে অবস্থিত সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে সমৃদ্ধ একটি জেলা। আর এই কিশোরগঞ্জ জেলার নিকলী উপজেলায় ঐতিহাসিক এই হাওর অবস্থিত।

নিকলী হাওর কিশোরগঞ্জ(Nikli haor kishorganj) জেলার নিকলী উপজেলায় অবস্থিত। ঐতিহাসিক এই নিদর্শনটি কিশোরগঞ্জ সদর থানা থেকে প্রায় ২৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।যেটি বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা থেকে প্রায় ১১০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত একটি অনন্য পর্যটন কেন্দ্র।

এই জলাভূমিটি ২৬০০ হেক্টরেরও বেশি এলাকা জুড়ে রয়েছে এবং এটি বিভিন্ন ধরণের উদ্ভিদ ও প্রাণীর আবাসস্থল। স্থানীয় জনগণের জন্যও এটি জীবিকা নির্বাহের একটি প্রধান উৎস হিসাবে পরিচিতি লাভ করেছে।

সমৃদ্ধ ইতিহাস

নিকলী হাওরের একটি সমৃদ্ধ ঐতিহাসিক পটভূমি রয়েছে। এটি একসময় একটি গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্য কেন্দ্র ছিল। এটি প্রাচীনকাল থেকেই অনেক পরিচিত একটি জায়গা ছিল এর প্রমাণ হাওর এর কাছাকাছি প্রাপ্ত প্রত্নতাত্ত্বিক ধ্বংসাবশেষ।

জলাভূমিতে বিভিন্ন প্রজাতির পাখি, উভচর এবং সরীসৃপও রয়েছে। নিকলি হাওর তার শ্বাসরুদ্ধকর দৃশ্যের জন্য পরিচিত এবং এটি পাখি দেখার জন্য একটি দুর্দান্ত স্থান।

কিভাবে যাবেন

নিকলী হাওর সড়ক, নৌ, রেলপথ সকল ভাবেই যাওয়া যায়।ট্রেনে যেতে হলে প্রথমে কিশোরগঞ্জ অভিমুখী যেকোনো ট্রেনে করে কিশোরগঞ্জ রেলওয়ে ষ্টেশনে যেতে হবে। তারপর সেখান থেকে সিএনজি করে খুব সহজেই এই হাওর এ পৌঁছানো যায়।

বাসে করেও কিশোরগঞ্জ নিকলী হাওর যাওয়া যায়। সেক্ষেত্রে কিশোরগঞ্জ অভিমুখী যেকোনো বাসে করে প্রথমে কিশোরগঞ্জ এর কটিয়াদি তে যেতে হবে।সেখান থেকে নিকলি হাওর মাত্র ২২ কিলো মিটার দূরে অবস্থিত। চাইলে সিএনজি বা অটো রিক্সায় যাওয়া যাবে।

ঢাকা থেকে কিশোরগঞ্জ যাওয়ার উপায়

  • কিশোরগঞ্জ নিকলী হাওর যাওয়ার সবচেয়ে ভালো উপায় হল ঢাকা থেকে ট্রেনে যাওয়া। প্রতিদিন ঢাকা থেকে বেশ কয়েকটি আন্তঃনগর ট্রেন কিশোরগঞ্জ এর উদ্দেশে ছেড়ে যায়। ট্রেন যাত্রায় প্রায় ছয় ঘন্টা সময় লাগে।
  • কিশোরগঞ্জ রেলওয়ে থেকে স্টেশনে থেকে নিকলি হাওর যাওয়ার বিভিন্ন উপায় আছে। সবচেয়ে জনপ্রিয় রাস্তাগুলোর মধ্যে একটি হল একটি নৌকা ভাড়া করা।নৌকা করে খুব সহজেই যাওয়া যায়।

নিকলি হাওর বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা, সেইসাথে দেশের অন্যান্য প্রধান শহর থেকে সহজেই অ্যাক্সেসযোগ্য। এখানে যাওয়ার সবচেয়ে জনপ্রিয় উপায় হল সড়কপথ।

এই নিকলি হাওর এ প্রবেশের জন্য দুটি প্রধান মহাসড়ক রয়েছে – ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক এবং ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক। ঢাকা থেকে যাত্রায় সময় লাগে ৪-৫ ঘণ্টা।

কিশোরগঞ্জ নিকলী হাওর
কিশোরগঞ্জ নিকলী হাওর

দর্শনীয় স্থান সমূহ

নিকলি হাওর এ রয়েছে বেশ কিছু দর্শনীয় স্থান যার মধ্যে অন্যতম হল নিকলি বেরিবাধ, পাহাড় খা এর মাজার শরিফ, গুরই শাহী জামে মসজিদ এবং সু বিস্তীর্ণ জলরাশি।

দর্শনীয় স্থানবিবরণ
নিকলি বেরিবাধএটি নিকলি উপজেলা অফিস এর ঠিক সামনে থেকে শুরু হয়ে বহুদুর বিস্তৃত।চাইলে পায়ে হেটে এর সৌন্দর্য উপভোগ করা যাবে।
গুরই শাহী জামে মসজিদএটি নিকলি উপজেলার অন্যতম প্রাচীন নিদর্শন এর মদ্ধে একটি। চাইলে রিক্সা করে খুব সহজেই ঘুরে আসা যাবে।
পাহাড় খা এর মাজার শরিফকিশোরগঞ্জ জেলার অন্যতম এই নিদর্শনটিতে যেতে হলে নিকলি হাওর থেকে খুব সহজেই মোটর সাইকেল কিংবা ট্রলার এ করে যাওয়া যাবে।
গুরই শাহী জামে মসজিদএটি গুড়াই ইউনিয়নে অবস্থিত। শুকনা মৌসুমে রিক্সা কিংবা অটো করে আর বর্ষা মৌসুমে খুব সহজেই ট্রলার বা নৌকা করে যাওয়া যাবে।

নিকলী হাওর রিসোর্ট | nikli haor resort

নিকলী হাওর রিসোর্ট(nikli haor resort) এখানকার জনপ্রিয় একটি বিনোদন কেন্দ্র। বাংলাদেশের নানা প্রান্ত থেকে ছুটে আসা ভ্রমন পিপাসুদের থাকা খাওয়া ও বিনোদন এর মাত্রাকে আর এক ধাপ এগিয়ে নিতে এই রিসোর্ট গুলো তৈরি করা হয়েছে। যার মধ্যে সবচেয়ে ভালো একটি রিসোর্ট হল প্রেসিডেন্ট রিসোর্ট( President Resort)।

গুরুত্বপূর্ণ কিছু প্রশ্নোত্তর

নিকলি হাওর

নিকলী হাওর (Nikli Haor) বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জে অবস্থিত একটি জলাভূমি বা মিঠা পানির হ্রদ। এটি প্রায় ২৫০০ হেক্টর এলাকা জুড়ে অবস্থিত এবং বাংলাদেশের বৃহত্তম হাওর।বর্ষাকালে হাওর তার চিরচেনা রুপে ফিরে আসে।

প্রশ্নঃ ঢাকা থেকে কিশোরগঞ্জ যাওয়ার উপায় কি ?

উত্তরঃ ঢাকা থেকে কিশোরগঞ্জ সড়ক, নৌ, রেলপথ সকল ভাবেই যাওয়া যায়। ট্রেনে যেতে হলে প্রথমে কিশোরগঞ্জ অভিমুখী যেকোনো ট্রেনে করে কিশোরগঞ্জ যাওয়া যাবে।বাসে গেলেও কিশোরগঞ্জ অভিমুখী যেকোনো বাসে( অনন্যা সুপার বাস সার্ভিস) করে কিশোরগঞ্জ যাওয়া যাবে

প্রশ্নঃ নিকলী হাওর কোথায় অবস্থিত ?

উত্তরঃ নিকলী হাওর কিশোরগঞ্জ জেলার নিকলী উপজেলায়  অবস্থিত। যেটি বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা থেকে প্রায় ১১০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত একটি অনন্য পর্যটন কেন্দ্র।

প্রশ্নঃনিকলী হাওর রিসোর্ট ?

উত্তরঃদূর দুরান্ত থেকে ছুটে আসা ভ্রমন পিপাসুদের থাকা খাওয়া ও বিনোদন এর মাত্রাকে আর এক ধাপ এগিয়ে নিতে নিকলী হাওর রিসোর্ট গুলো তৈরি করা হয়েছে। যার মধ্যে জনপ্রিয় একটি রিসোর্ট হল প্রেসিডেন্ট রিসোর্ট( President Resort)।

Similar Posts