নোয়াখালী কিসের জন্য বিখ্যাত | নোয়াখালী বিখ্যাত ব্যক্তি 2024

4.5/5 - (6 votes)

নোয়াখালী কিসের জন্য বিখ্যাত এবং নোয়াখালী বিখ্যাত ব্যক্তি সহ জানা অজানা নানা তথ্য নিয়ে আজকের আলোচনা। নোয়াখালী বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় একটি জেলা। এ জেলায় রয়েছে নানা অজানা ইতিহাস ও ঐতিহ্য যা জানলে আপনিও চমকে যাবেন।

নোয়াখালীর জেলার ভাষা বাংলাদেশের অন্যান্য জেলার মানুষের কাছে বেশি মজাদার, কখনো কখনো হাস্যকরও। সবচেয়ে মজার ব্যাপার হল, যার কাছে শুনতে যেমনই লাগুক, নোয়াখালীর মানুষদের “নোয়াখাইল্যা” ভাষা বুঝতে কষ্ট হয়না কারোরই।

নোয়াখালী কিসের জন্য বিখ্যাত
নোয়াখালী কিসের জন্য বিখ্যাত

নোয়াখালী জেলা

নোয়াখালী জেলার অবস্থান বাংলাদেশের দক্ষিণ পূর্ব অঞ্চলে। এই জায়গাটি চট্টগ্রাম বিভাগের অন্তর্ভুক্ত। নোয়াখালী জেলার মোট আয়তন ৩৪৩৫.৬৩ বর্গ কিলোমিটার। এ জেলার সকল তথ্য পাওয়া যাবে সরকারি ওয়েবসাইট www.noakhali.gov.bd এই ওয়েবসাইটে।

এ জেলার আদি নাম বা প্রাচীন নাম ছিল ভুলুয়া। একই সাথে নোয়াখালী সদর থানা পূর্ব নাম ছিল সুধারাম। এই জেলার উত্তরে কুমিল্লা জেলা দক্ষিণে মেঘনার মোহনা এবং বঙ্গোপসাগর পূর্বে ফেনী জেলা এবং চট্টগ্রাম জেলা অবস্থিত পশ্চিমে লক্ষ্মীপুর ও ভোলা জেলা অবস্থিত।

সর্বশেষ আদমশুমারি ২০২২ অনুসারে, এ জেলার মোট জনসংখ্যা ৯১ লক্ষ ৬৩ হাজার ৭৬০ জন। যার মধ্যে পুরুষ ৪৫ লক্ষ ৬৬ হাজার ৩৯ জন এবং মহিলা ৪৫ লক্ষ ৯৭ হাজার ৭৬ জন। নোয়াখালী কিসের জন্য বিখ্যাত এবং নোয়াখালী বিখ্যাত ব্যক্তি সহ নানা অজানা তথ্য জানতে পারব।

নোয়াখালী কিসের জন্য বিখ্যাত

নোয়াখালী জেলা ঐতিহ্যবাহী মরিচ খোলাজা, নারকেল নাড়ু, পাটিসাপটা পিঠা ইত্যাদি খাবারের জন্য বিখ্যাত। শুধু তাই নয়, নোয়াখালী স্বর্ণদ্বীপ এবং নিঝুম দ্বীপের জন্য বিখ্যাত হয়ে উঠেছে।

নোয়াখালী জেলার নারকেল নাড়ু ও মরিচ খোলাজা খুব বিখ্যাত। এছাড়া বিভিন্ন ধরনের পিঠার জন্য নোয়াখালী জেলা বিখ্যাত। যেমন: পাটিসাপটা পিঠা,মেরা পিঠা,ছাইন্না পিঠা ইত্যাদি। এছাড়া বাংলাদেশের বৃহত্তর নদী মেঘনা নোয়াখালী জেলায় অবস্থিত।

ইতিহাস থেকে জানা যায় নোয়াখালী জেলা তার মনোরম সৌন্দর্য এবং সম্মিলিত সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের জন্য বিখ্যাত একই সাথে তাদের অতিথি আপ্যায়ন এবং তৈরি পিঠা (যেমন, মেরা পিঠা, ছাইন্না পিঠা, পাটিসাপটা পিঠা ইত্যাদি) অনেক জনপ্রিয়।

জেনে নিনঃ বাংলাদেশের কোন জেলা কিসের জন্য বিখ্যাত

নোয়াখালী যার তাদের নিজস্ব ভাষা ও সেখানকার মানুষদের জন্য বিখ্যাত। এ জেলার ভাষা বাংলাদেশের অন্যান্য জেলার মানুষের কাছে কম বেশি জনপ্রিয়। সবচেয়ে মজার ব্যাপার যার কাছে শুনতে যেমনই লাগুক, নোয়াখালীর মানুষদের নোয়াখাইল্যা ভাষা বুঝতে কষ্ট হয়না কারো। এটাই মানুষের কৌতুহলের অন্যতম কারন।

নোয়াখালী জেলার একটি উল্লেখযোগ্য অংশ উপকূলীয় এলাকা নিয়ে গঠিত এবং বাকি বেশিরভাগই সমতলভূমি।দেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে অবস্থিত বাংলাদেশের নোয়াখালী জেলা চট্টগ্রাম বিভাগের ১২টি জেলার মধ্যে একটি। এটি একটি প্রশাসনিক জেলা যার সদর দপ্তর নোয়াখালী শহরে অবস্থিত। জেলায় পাঁচটি মহকুমা ও ১১টি উপজেলা রয়েছে।

বিখ্যাত খাবার

নোয়াখালী কিসের জন্য বিখ্যাত খাবার ? এ জেলার বিখ্যাত খাবারের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে নারকেল নাড়ু এবং পাটিসাপটা পিঠা। এছাড়াও এ জেলার বিখ্যাত খাবার এর মধ্যে রয়েছেঃ

  • কলা পাতার মরিচ গুলা বা পাতুরি
  • খোলাযা
  • নারিকেল নাড়ু
  • ম্যারা পিঠা
  • ছাইন্না পিঠা এবং
  • পাটিসাপটা পিঠা

নোয়াখালী বিখ্যাত ব্যক্তি

নোয়াখালী জেলা অনেক বিখ্যাত ব্যক্তির বাসস্থান। নোয়াখালী বিখ্যাত ব্যক্তি হলেন শহীদ বীরশ্রেষ্ঠ মোঃ রুহুল আমিন, ওবায়দুল কাদের, শহীদ বুদ্ধিজীবী এ এম এম মনির চৌধুরী, হাবিবুর রহমান, আতাউর রহমান, চিত্তরঞ্জন সাহা ও প্রভৃতি।এছারাও রয়েছেন বাংলা একাডেমী বই মেলার উদ্যোক্তা, গীতিকার , সুরকার, সংগীত পরিচালক, গায়ক, মুক্তিযোদ্ধা আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল। চলুন এক নজরে জেনে নেই নোয়াখালী জেলার ২০ জন বিখ্যাত ব্যক্তিবর্গ দের সম্পর্কে।

বাংলাদেশের সকল জেলার বিখ্যাত ব্যক্তি দের সম্পর্কে জানুন
নোয়াখালী বিখ্যাত ব্যক্তি সংক্ষিপ্ত পরিচিতি
১। ওবায়দুল কাদেরপেশায় তিনি রাজনীতিবিদ। তিনি 1952 সালের পহেলা জানুয়ারি নোয়াখালী জেলার কোম্পানীগঞ্জ থানার বড় রাজাপুর গ্রামের জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম মোশাররফ হোসেন এবং মাতা ফজিলাতুন্নেসা।
২। এ.এন.এম মুনীর চৌধুরীতিনি ছিলেন বাংলা সাহিত্যের একজন শক্তিধর ভাস্কর এবং দক্ষ কারকার।
৩। আতাউর রহমানতিনি পেশায় মঞ্চ ও টেলিভিশন অভিনেতা মঞ্চ নির্দেশক এবং লেখক।
৪। হবিবুর রহমানতিনি মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে বাংলাদেশের প্রথম শহীদ বুদ্ধিজীবী হিসেবে স্বীকৃত।
৫। চিত্তরঞ্জন সাহাতুমি বাংলাদেশের প্রফেশনাল শিল্পীর একজন পথিকৃত এবং বাংলা একাডেমি বইমেলার উদ্যোক্তা।
৬। আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলতিনি একাদ্বারে গীতিকার, সুরকার, সংগীত পরিচালক, গায়ক এবং মুক্তিযুদ্ধা হিসেবে পরিচিত
৭। কবির চৌধুরীতিনি হচ্ছেন একজন শিক্ষাবিদ প্রাবন্ধিক এবং অনুবাদক
৮। ঝর্না ধারা চৌধুরীসমাজকর্মী সমাজসেবক এবং নোয়াখালীর গান্ধী আশ্রম ট্রাস্টের সাবেক সেক্রেটারি।
৯। শিরীন শারমিন চৌধুরীতিনি বাংলাদেশের সর্বপ্রথম নারী স্পিকার এবং একজন বিখ্যাত রাজনীতিবিদ।
১০। মোতাহের হোসেন চৌধুরীতিনি একাধারে শিক্ষাবিদ এবং লেখক।
১১। শাহাদাত হোসেন চৌধুরীবাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল বর্তমানে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের একজন কমিশনার।
১২। আবুল কালাম আজাদএকজন বীর বিক্রম হিসেবে তিনি নোয়াখালী বিখ্যাত ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত।
১৩। হেমপ্রভা মজুমদারতিনি ব্রিটিশ বিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলনের একজন ব্যক্তিত্ব ও অগ্নিকন্যা হিসেবে পরিচিত।
১৪। ইঞ্জিনিয়ার ওবায়দুল্লাহপেশায় এখন মাইনিং ইঞ্জিনিয়ার। তিনি ইংরেজ শাসিত ভারতবর্ষে অবিভক্ত বাংলার প্রথম মাইনিং ইঞ্জিনিয়ার। যিনি ১৮৭৬ সনে নোয়াখালী জেলার সুধারন থানার অধীনে সল্লাঘটিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।
১৫। আব্দুল মালেকতিনি নোয়াখালী জেলার বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ, বিজ্ঞ আইনজীবী। তিনি জন্মগ্রহণ করেন নোয়াখালী যাওয়ার সুধারাম থানার রাজাপুর গ্রাম।
১৬। কাজী গোলাম রসূলতিনি বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার বিচারক।
১৭। ফেরদৌস মজুমদারপেশায় একজন অভিনেত্রী।
১৮। মাহমুদুর রহমান বেলায়েতমুক্তিযুদ্ধকালীন কমান্ডার বি এল এফ, বৃহত্তর নোয়াখালী।
১৯। মোফাজ্জল হায়দারতিনি একজন মরণশীল প্রবন্ধকার, বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের গবেষক, শিক্ষাবিদ, এবং বুদ্ধিজীবী।
২০। আমিনুল হকতিনি বাংলাদেশের ষষ্ঠ অ্যাটর্নি জেনারেল এবং আইনজীবী।
নোয়াখালী বিখ্যাত ব্যক্তি

উপজেলা সমূহ

নোয়াখালী জেলায় মোট ৮টি পৌরসভা, ৭২ টি ওয়ার্ড এবং ১৫৩ টি মহল্লা রয়েছে। সেই সাথে এখানে ৫১ ইউনিয়ন, ৮৮২টি মৌজা এবং ৯৬৭টি গ্রাম রয়েছে।

নোয়াখালী জেলার উপজেলা সমূহ হচ্ছেঃ নোয়াখালী সদর, বেগমগঞ্জ, চাটখিল, কোম্পানিগঞ্জ, হাতিয়া, সেনবাগ, সুবর্ণচর, সোনাইমুড়ী এবং কবিরহাট উপজেলা।

নোয়াখালী কিসের জন্য বিখ্যাত এবং নোয়াখালী বিখ্যাত ব্যক্তি সম্পর্কে জানলেন। এবার চলুন জেনে নিই এ জেলার কিছু দর্শনীয় স্থান সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে।

দর্শনীয় স্থানসমূহ

নোয়াখালী জেলার বিখ্যাত দর্শনীয় স্থানগুলোর মধ্যে বজরা শাহী জামে মসজিদ, নোয়াখালী ভাষানচর, নিঝুম দ্বীপ, স্বর্ণদ্বীপ ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য। যুগের পর যুগ ধরে এসব স্থান নোয়াখালীর সেরা দর্শনীয় স্থান হিসেবে অনন্য মর্যাদা লাভ করে আসছে।

এছারাও বেশ কিছু দর্শনীয় স্থান রয়েছে। সেগুলো হচ্ছেঃ

  • বজরা শাহী জামে মসজিদ
  • রুহুল আমিন গ্রন্থাগার ও স্মৃতি জাদুঘর
  • স্বর্ণদ্বীপ
  • ভাষানচর
  • নিঝুম দ্বীপ
নোয়াখালী জেলার দর্শনিয় স্থান
নোয়াখালী জেলার দর্শনীয় স্থান সমূহ

বজরা শাহি জামে মসজিদঃ ঐতিহাসিক ঐতিহাসিক এই মসজিদটি নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়ী উপজেলার বজরা ইউনিয়ন অবস্থিত। আনুমানিক ১৮ শতাব্দীতে নির্মিত এই মসজিদটি ১৯৯৮ সাল থেকে বাংলাদেশ প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের অধীনে রয়েছে।

রুহুল আমিন গ্রন্থাগার ও স্মৃতি জাদুঘরঃ বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের চরণ সহযোগিতা আর অসামান্য বীরত্বের জন্য যে ৭ জন বিরশ্রেষ্ঠ কে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ সামরিক সম্মান “বীরশ্রেষ্ঠ” উপাধিতে ভূষিত করা হয়েছে তাদের মধ্যে অন্যতম রুহুল আমিন।

তিনি বর্তমান সোনাইমুড়ি উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তার নামে বীরশ্রেষ্ঠ মোঃ রুহুল আমিন গ্রন্থাগার ও স্মৃতি জাদুঘর ২০০৮ সালে ২০ জুলাই নোয়াখালী জেলা সদর থেকে ২৫ কিলোমিটার দূরে সোনাইমুড়ি উপজেলার দেওটি ইউনিয়নের বাগপাচরা গ্রামে নির্মাণ করা হয়।

নোয়াখালী স্বর্ণদ্বীপঃ ১৯৭৮ সালের নোয়াখালী দক্ষিণ বঙ্গোপসাগর ও মেঘনা নদীর মোহনায় জেগে ওঠে একটি দ্বিপ। স্থানীয় ভাসায় যার নাম জাহাইজ্জ্যার চর। যার বর্তমান নাম স্বর্ণদ্বীপ।

ভাষানচরঃ ভাষানচর মেঘনা নদী ও বঙ্গোপসাগরের মোহনায় জেগে ওঠা বাংলাদেশের একটি ছোট্ট দ্বিপ। যেটা কিনা মায়ানমার রোহিঙ্গা দের আশ্রয়স্থল হিসেবে বহুল পরিচিত।

যারা শুধু নোয়াখালী জেলাকে তাদের অতিথি আপ্যায়ন, এবং বিভিন্ন পিঠার জন্য বিখ্যাত বলে থাকেন তারা আসলে ভুল ভাবছেন।

যারা নোয়াখালী কিসের জন্য বিখ্যাত এই সম্পর্কে জানতে চান তাদের উদ্দেশ্য বলি নোয়াখালী শুধু এসবের জন্যই বিখ্যাত না নোয়াখালী তাদের দর্শনীয় স্থান, তাদের বিখ্যাত ব্যক্তি ইত্যাদির জন্যও অনেক বিখ্যাত।

নোয়াখালী জেলা ছাড়াও অন্য কোন জেলা সম্পর্কে চান তাহলে bikkhatobd সাইটটি অনুসরণ করুন।

নোয়াখালী কিসের জন্য বিখ্যাত

নোয়াখালী জেলা তাদের অতিথি আপ্যায়ন, বিভিন্ন পিঠা পান্ডুয়া এসব ছাড়াও ঐতিহ্যবাহী মরিচ খোলা, নারকেল নাড়ু ইত্যাদির জন্য বিখ্যাত।

নোয়াখালীর উপজেলা কয়টি ?

নোয়াখালী জেলায় মোট ৯টি উপজেলা রয়েছে।

নোয়াখালী জেলার বিখ্যাত ব্যক্তি

নোয়াখালী জেলার বিখ্যাত ব্যক্তিদের মধ্যে ওবায়দুল কাদের এবং ডঃ সিরিজ চৌধুরী অন্যতম। এছাড়াও রয়েছেন চিত্তরঞ্জন শাহা এবং হাবিবুর রহমান।

নোয়াখালী পুরাতন নাম কি ?

নোয়াখালী জেলার প্রাচীন নাম ছিল ভুলুয়া। নোয়াখালী সদর থানার আদি নাম সুধারাম।

ভুলুয়া থেকে নোয়াখালী জেলার নামকরণ করা হয় কত সালে?

উত্তরঃ ইতিহাস থেকে জানা যায় যে ১৮৬৮ সালে নোয়াখালীর আদি নাম ভুলুয়া থেকে “নোয়াখালী” নামকরন করা হয়।

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *