জাতীয় জাদুঘর | জাতীয় জাদুঘর অনলাইন টিকেট

5/5 - (1 vote)

জাতীয় জাদুঘর (National Museum) দেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও ইতিহাসের অন্যতম নিদর্শন। রাজধানী ঢাকায় অবস্থিত এই জাদুঘরটিতে ভাস্কর্য, চিত্রকর্ম, পাণ্ডুলিপি, মুদ্রা, কারেন্সি নোট এবং অন্যান্য ঐতিহাসিক বস্তু সহ ঐতিহাসিক নিদর্শনগুলির একটি বিশাল এবং বৈচিত্র্যময় সংগ্রহ রয়েছে।

আজকে জাতীয় জাদুঘর খোলার সময়সূচী, জাদুঘর অনলাইন টিকেট, কোথায় অবস্থিত, কবে বন্ধ থাকে ইত্যাদি সম্পর্কে বিস্তারিত জানার চেষ্টা করব। এখানে অবস্থিত গ্যালারিতে লোকশিল্প, ঐতিহ্যবাহী পোশাক, অস্ত্র, মুদ্রা এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ স্থাপত্যশৈলী তুলে ধরার মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের শিল্পকর্ম প্রদর্শন করা হয়েছে।

বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর

জাতীয় জাদুঘর (National Museum) একটি গুরুত্বপূর্ণ সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান যেটি বাংলাদেশের সমৃদ্ধ ইতিহাস সংরক্ষণ ও প্রদর্শনের জন্য তৈরি করা হয়েছে। ১৯১৩ সালে প্রতিষ্ঠিত এই জাদুঘরটিতে প্রাগৈতিহাসিক, প্রোটোহিস্টোরিক এবং ইসলামিক সময়কাল সহ বিভিন্ন সময়কাল এবং সভ্যতার প্রায় ৮৬০০০ টিরও বেশি বস্তুর একটি বিশাল সংগ্রহ রয়েছে।

জাতীয় জাদুঘর
জাতীয় জাদুঘর

হাজার হাজার বছর আগের একটি সমৃদ্ধ ইতিহাস ও সংস্কৃতির মাধ্যমে জাদুঘরটি বাংলাদেশের জনগণ এবং সারা বিশ্বের দর্শকদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে আসছে। জাদুঘরটি চারটি প্রধান বিভাগে বিভক্ত।

  • প্রত্নতত্ত্ব
  • নৃতত্ত্ব
  • প্রাকৃতিক ইতিহাস এবং
  • সমসাময়িক শিল্প ও বিশ্ব সভ্যতা।

ইতিহাস

এই জাদুঘর এর একটি সমৃদ্ধ ইতিহাস রয়েছে যা বিশ শতকের গোড়ার দিকে, যখন এটি ঢাকা পাবলিক লাইব্রেরির একটি বিভাগ হিসাবে শুরু হয়েছিল। ১৯১৩ সালে এই বিভাগটি একটি পূর্ণাঙ্গ জাদুঘরে সম্প্রসারিত হয়। যেখানে বাংলার বিভিন্ন অঞ্চলের বিভিন্ন শিল্প ও নিদর্শন প্রদর্শন করা হয়।

তারপর থেকে জাদুঘরটির বেশ কয়েকবার সংস্কার ও সম্প্রসারণ করা হয়েছ। তবে বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক ও ঐতিহাসিক ঐতিহ্য সংরক্ষণের প্রতিশ্রুতি বরাবরের মতোই দৃঢ় রয়েছে। এর সংগ্রহে ১ লক্ষ টিরও বেশি বস্তু সহ, বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরটি দেশের সমৃদ্ধ উত্তরাধিকারের একটি প্রমাণ এবং ইতিহাস ও সংস্কৃতিতে আগ্রহী যে কারও জন্য অবশ্যই দর্শনীয় আকর্ষণ।

শাহবাগ জাদুঘর

বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর (Bangladesh National Museum) দেশের সর্ব বৃহৎ জাদুঘর। যেটি রাজধানীর শাহবাগে অবস্থিত বলে অনেকেই শাহবাগ জাদুঘর বলে থাকেন।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গনের সাথেই গড়ে উঠা এই জাদুঘরটির যাত্রা শুরু হয় ১৯৮৩ সালে।

১৯১৩ সালে ঢাকা মেডিকেল কলেজের একটি রুমে জাদুঘর হিসাবে স্বীকৃতি পাওয়া এই জাদুঘরটি তৎকালীন গভর্নর লর্ড কারমাইকেল প্রতিষ্ঠা করেন। যেটি স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে ১৯৮৩ সালে নতুন আঙ্গিকে দেশের জাতীয় জাদুঘর এর স্বীকৃতি লাভ করে। চার তালা ভবন বিশিষ্ট এই জাদুঘরে রয়েছেঃ

  • ৪৫টি গ্যালারি
  • মূল গেইটে মুজিব ভাস্কর্য
  • মুজিব মঞ্চ/ সিনেপ্লেক্স
  • হারিয়ে যাওয়া রাজ্য পালকি/পালং/ মাটির গোলা সহ
  • প্রায় ৮৩ হাজারের ও বেশি নিদর্শন।

কোথায় অবস্থিত

বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর রাজধানী ঢাকা জেলার শাহবাগ থানায় অবস্থিত। এটি শাহবাগ বাস স্ট্যান্ড মোড় এর একদম সাথে অবস্থিত। এর পশ্চিমে এলিফান্ট রোড, বাটা সিগনাল ও কাটাবন মার্কেট, পূর্বে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান, স্বাধীনতা জাদুঘর, শহিদ জিয়া শিশু পার্ক এবং রমনা পার্ক অবস্থিত।

একইভাবে উত্তরে পিজি বা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিক্যাল কলেজ এবং দক্ষিনে প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অবস্থিত।

জাতীয় জাদুঘর কবে বন্ধ থাকে ২০২৩

জাতীয় জাদুঘর সপ্তাহের সকল দিন খোলা থাকে না। এটি প্রতি বৃহস্পতিবার বন্ধ থাকে। এছাড়া প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৪ঃ৩০ পর্যন্ত খোলা থাকে। সরকারি ছুটির দিনও বন্ধ থাকে না।

জাতীয় জাদুঘর খোলার সময়সূচী ২০২৩

শাহবাগ এ অবস্থিত বাংলাদেশের জাতীয় জাদুঘর ২০২৩ সালের জানুয়ারি মাস হতে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত খোলা রাখা হয়। এছাড়াও গ্রীষ্মকালীন এবং শীতকালীন সময়সূচী তে পার্থক্য রয়েছে।

  • গ্রীষ্মকালীন সময়ে (April – September) জাদুঘরটি সকাল ১০ঃ৩০ মিনিট থেকে বিকাল ৫ঃ৩০ মিনিট পর্যন্ত খোলা থাকে। তবে সাপ্তাহিক বন্ধের দিন বৃহস্পতিবার।
  • শীতকালীন সময়ে (October -March) শাহবাগ জাদুঘর বন্ধের দিন ছাড়া প্রতিদিন সকাল ৯ঃ৩০ মিনিট থেকে বিকাল ৪ঃ৩০ মিনিট পর্যন্ত খোলা রাখা হয়। এই সময়সুচি অনুসারেও বন্ধের দিন বৃহস্পতিবার।
বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর সময়সূচি
শনিবার সকাল ১০ঃ৩০ মিনিট – বিকাল ৪ঃ৩০ মিনিট
রবিবার সকাল ১০ঃ৩০ মিনিট – বিকাল ৪ঃ৩০ মিনিট
সোমবার সকাল ১০ঃ৩০ মিনিট – বিকাল ৪ঃ৩০ মিনিট
মঙ্গলবার সকাল ১০ঃ৩০ মিনিট – বিকাল ৪ঃ৩০ মিনিট
বুধবার সকাল ১০ঃ৩০ মিনিট – বিকাল ৪ঃ৩০ মিনিট
বৃহস্পতিবার সাপ্তাহিক বন্ধের দিন
শুক্রবার সকাল ১০ঃ৩০ মিনিট – বিকাল ৪ঃ৩০ মিনিট

জাতীয় জাদুঘর টিকেট মূল্য ২০২৩

বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর এর টিকেট মূল্য বা প্রবেশ মূল্য আগে ২০ টাকা থাকলেও বর্তমানে তা পরিবর্তন করে ৪০ টাকা করা হয়েছে। তাই বলা যায় জাদুঘরটির টিকিট মূল্য ৪০ টাকা।সেই সাথে তিন (৩) থেকে বারো (১২) বছরের সকল শিশুদের জন্য ২০টাকা। সার্কভুক্ত দেশের দর্শনার্থীদের জন্য ৩০০ টাকা এবং অন্যান্য দেশের দর্শনার্থীদের জন্য ৫০০ টাকা।

national museum online ticket price
national museum online ticket price

জাতীয় জাদুঘর অনলাইন টিকেট

জাতীয় জাদুঘর অনলাইন টিকেট কাটার জন্য প্রথমে https://nationalmuseumticket.gov.bd/ এই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে Buy Ticket অপশনে যাবতীয় তথ্য দিয়ে রেজেস্ট্রেশন সম্পন্ন করতে হবে। তারপর লগইন করে Purchase eTicket অপশনে ক্লিক করুন। জাদুঘরে ভ্রমণের তারিখ, টিকেট সংখ্যা লিখে Add বাটনে ক্লিক করুন। Make Payment বাটনে ক্লিক করে বিকাশ/ নগদ/ রকেট দিয়ে আপনার পেমেন্ট সম্পন্ন করে অনলাইন টিকেট ডাউনলোড করা যাবে।

টিকেট কাটার নির্দেশনা

জাতীয় জাদুঘর
জাতীয় জাদুঘর অনলাইন টিকেট

কিভাবে যাবেন

ঢাকা শহরের যেকোনো প্রান্ত হতে খুব সহজেই আসা যায় এই জাদুঘরে। বাস, সিএনজি, প্রাইভেট কার, পাঠাও সহ সকল মাধ্যমেই আসা যায় খুব সহজে। সবচেয়ে উত্তম উপায় হল বাসে আসা। নিচের তালিকাটিতে শাহবাগে আসা সকল বাসের তথ্য উপস্থাপন করা হলঃ

গন্তব্যআসার উপায়
মিরপুরবিহঙ্গ, দিশারী, ট্রান্সসিল্ভা, শিকড়, হিমাচল, বাহন, নিউ ভিশন বাস সহ গুলিস্থান গামি সকল বাস
গাবতলি/ সাভারগাবতলি ৮নং,বঙ্গবন্ধু ও এয়ারপোর্ট ট্রান্সপোর্ট সহ মিরপুর এর সকল বাস।
গুলিস্তান/পল্টনশাহবাগ অভিমুখী সকল বাস যেমন, বিহঙ্গ, শিকড়, হিমাচল, দিশারী।
রামপুরা/বাড্ডারমজান, তরঙ্গ প্লাস ইত্যাদি বাসে করে সরাসরি।
মৌচাক/ মালিবাগরমজান ও তরঙ্গ প্লাস বাস।
নারায়ণগঞ্জমেঘলা পরিবহন ও হিমাচল পরিবহন
গাজীপুর/ এয়ারপোর্টবঙ্গবন্ধু এয়ারপোর্ট এ সরাসরি, বলাকা পরিবহনে কাকরাইল নেমে রিক্সা অথবা রমজান বাস।
ধানমন্ডিমিডল্যান্ড, দিশারী, মেঘলা,ট্রান্সসিল্ভা, বাহন
শাহবাগ জাদুঘর আসার উপায়

একনজরে গালারি সমূহ

জাতিতত্ত্ব ও অলংকরণ শিল্পকলা বিভাগ

জাতিতত্ত্ব ও অলংকরণ শিল্পকলা বিভাগ বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও জীবনধারা সম্পৃক্ত লোকজ এবং ধ্রুপদী আঙ্গিকের ঐতিহ্যমণ্ডিত শিল্পকর্ম সংগ্রহ ও সংরক্ষণ করে থাকে।

জাতিতত্ত্ব অংশে বাংলাদেশের জনজীবনের সাংস্কৃতিক ও প্রাত্যহিক কর্মে ব্যবহার্য দ্রব্যাদি, এ দেশে বসবাসকারী ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীসমূহের জীবনযাত্রায় নিত্যব্যবহার্য সামগ্রী এবং বিভিন্ন সামাজিক আচার অনুষ্ঠানে ব্যবহার্য নিদর্শন স্থান পেয়েছে। এখানে মোট গ্যালারী সংখ্যা ১৬ টি।

ইতিহাস ও ধ্রুপদী শিল্পকলা বিভাগ

এই বিভাগটি বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর এর বৃহত্তম কিউরেটরিয়াল বিভাগ। এই জাদুঘরের সংগ্রহভুক্ত নিদর্শনসমূহের মধ্যে অধিকাংশই এই বিভাগের নিদর্শন, যার মোট সংখ্যা প্রায় ৭৩,০০০।

ইতিহাস ও ধ্রুপদী শিল্পকলা বিভাগের সংগ্রহভুক্ত নিদর্শনসমূহের মধ্যে রয়েছে প্রাগৈতিহাসিক যুগের বিভিন্ন নিদর্শন, প্রত্নতাত্ত্বিক গুরুত্ব বহনকারী মৃৎশিল্প ও অন্যান্য নিদর্শন, পাথরের তৈরি ভাস্কর্য ও স্থাপত্যশিল্পের নিদর্শন, তামা, ব্রোঞ্জ ও কাসার তৈরি ভাস্কর্য, পোড়ামাটির ফলক, লেখমালা, মুদ্রা, অলংকার, পাণ্ডুলিপি, দলিলপত্র, অনুচিত্র, লিপিকলা, প্রতিকৃতি, বরেণ্য ব্যক্তিবর্গের স্মৃতি নিদর্শন এবং বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সাথে সম্পর্কযুক্ত নিদর্শনসমূহ।

প্রশ্নঃ বাংলাদেশের জাতীয় জাদুঘর কোথায় অবস্থিত ?

উত্তরঃ বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর রাজধানী ঢাকার শাহবাগে অবস্থিত।

প্রশ্নঃ জাতীয় জাদুঘর কত সালে প্রতিষ্ঠিত হয় ?

উত্তরঃ এটি ১৯১৩ সালের ২০ মার্চ প্রতিষ্ঠিত হয়। পরবর্তীতে ১৯৮৩ সালের ১৭ই নভেম্বর এটিকে বাংলাদেশের জাতীয় জাদুঘর হিসাবে ঘোষণা করা হয়।

প্রশ্নঃ জাতীয় জাদুঘর খোলার সময়সূচী ২০২৩

উত্তরঃ গ্রীষ্মকালীন সময়ে জাদুঘরটি সকাল ১০ঃ৩০ মিনিট থেকে বিকাল ৫ঃ৩০ মিনিট পর্যন্ত খোলা থাকে এবং শীতকালীন সময়ে বন্ধের দিন ছাড়া প্রতিদিন সকাল ৯ঃ৩০ মিনিট থেকে বিকাল ৪ঃ৩০ মিনিট পর্যন্ত খোলা রাখা হয়।

Similar Posts